নিউজনেক্সটবিডি ডটকম আর্কাইভ
সুভাষ দত্তর মতো শিশুবান্ধব পরিচালক এখন নেই
November 16th, 2014 Author On বিনোদন
সুভাষ দত্তর মতো শিশুবান্ধব পরিচালক এখন নেই

‘দাদা, আমার সালাম নেবেন। শুনলাম ডুমুরের ফুল ছবি করছেন। ওতে এক সর্বহারা এতিম বালকের চরিত্র আছে। আমাকে দিয়ে চেষ্টা করে দেখতে পারেন। ইতি শাকিল।’

উপরের চিঠিটি প্রয়াত পরিচালক সুভাষ দত্তের কাছে লেখা একজন শিশুশিল্পীর। নাম তার মাস্টার শাকিল। পুরো নাম আজাদ রহমান শাকিল। এই চিঠিটি লেখার টর সুভাশ দত্ত তার ডুমুরের ফুল চলচ্চিত্রে নিয়েছিলেন শাকিলকে। তারপর বাকিটা ইতিহাস।

_MG_1341-01-newsnextbdনতুন কুঁড়িতে প্রথম স্থান অধিকার করা শাকিল পরবর্তীতে ‘ডুমুরের ফুল’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়াও শাকিল ‘ডানপিটে ছেলে’ ও ‘পুরস্কার’ চলচ্চিত্রের জন্য আরো দুবার জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন। তাকে তুলনা করা হয় পথের পাঁচালীর অপু (সুবীর বন্দ্যোপাধ্যায়) সঙ্গে। যেহেতু প্রয়াত চলচ্চিত্রকার সুভাষ দত্তের হাত ধরেই চলচ্চিত্রে পদার্পন ঘটেছিল তার তাই সুভাষ দত্তের প্রস্থানের দুই বছর উপলক্ষে নিউজনেক্সটবিডি এর পক্ষ থেকে কথা হলো তার সাথে। কথা বলেছেন আহমেদ তেপান্তর।

 

নিউজনেক্সটবিডি : কেমন আছেন?

মাস্টার শাকিল: অনেক ভাল। অনেক তৃপ্ত।

 নিউজনেক্সটবিডি : তৃপ্ত কেন?

মাস্টার শাকিল : এতোদিন পড়েও দর্শক ভুলে যায়নি বলে।

নিউজনেক্সটবিডি : আপনার সময় কাকে প্রতিদ্বন্দ্বি মনে হতো?

মাস্টার শাকিল : আসলে কাউকে প্রতিদ্বন্দ্বি হিসেবে ভাববার বয়সটা তখন ছিল না। কারণ নিজেকে ছাড়িয়ে যাবার চেষ্টা করেছি। ফলে দেখবেন গল্প বিষয় আঙ্গিকে নিজেকে আমি ভিন্ন ভিন্নভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছি। সেটা ডুমুরের ফুল অথবা এতিম যেটাই বলেন।

নিউজনেক্সটবিডি : তবুও আপনার সমসাময়িকদের মধ্যে কার অভিনয় দেখলে একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা অনুভব করতেন?

মাস্টার শাকিল : একজনের কথা বলতেই হয়- মাস্টার সুমন। ও কিন্তু চ্যাম্পিয়ন অভিনেতা ছিলো। পুরস্কার ছবিতে আমি পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করি। ওটাতে সুমন ছিল প্রধান চরিত্র। কিন্তু পুরস্কারটা শেষ পর্যন্ত আমাকে দেয়া হয়। এজন্য এক সময় আনন্দ হয় আবার বন্ধুর জন্য সমবেদনাও হয়। যখন ছুটির ঘন্টায় ওকে পুরস্কার দেয়া হলো না তখনও। ছুটির ঘণ্টা বা অশিক্ষিত ছবির জন্য সুমনকে দর্শক এখনো মনে করে।

নিউজনেক্সটবিডি : বন্ধুত্ব কি এখনো আছে?

মাস্টার শাকিল : কেন নয়, ও এখন আমেরিকা প্রবাসী কিন্তু আমাদের নিয়মিত যোগাযোগ হয়। দেশে আসলে তো আমারা বেশ আড্ডা দেই, সময়ের হাত ধরে স্মৃতি অন্তরালে যাই।

নিউজনেক্সটবিডি : দেবদাস ছবিতে আপনার পাবর্তী?

মাস্টার শাকিল: আরে লোপা, ওর নাম হচ্ছে আইরিন পারভিন লোপা। এখন শিল্পকলা একাডেমিতে পদস্থ কর্মকতা। প্রায়দিনই কথা হয়, দেখা হয়।

নিউজনেক্সটবিডি : আপনার ছবি দেখে কখনো কি মনে হয়েছে দর্শক আপনাকে বাস্তবতার সঙ্গে মেলাতে পারে?

মাস্টার শাকিল : মনে পড়ে সে বছর আঘাত ছবিটি মুক্তি পেল। আব্বা আমাকে নিয়ে অভিসার সিনেমা হলে গেলেন। বের হবার সময় এক দর্শক ভদ্রমহিলা আমাকে চিনতে পেরে কাঁদতে কাঁদতে বললেন-  বাবা তুমি আর কত কাদাবে আমাদের । এটা ছিল বাস্তব একটা বিষয়। এমন অনেক উদাহরণই আমার স্মৃতিতে রয়েছে। আসলে আমি গ্লিসারিন কাকে বলে বুঝতে পারতাম না। স্ক্রিপ্ট পেলে কোথায় ইমোশন আনতে হবে তা বুঝে ডেলিভারি দিতাম।

 নিউজনেক্সটবিডি : এখন আপনার মতো শিশুশিল্প কেন তৈরি হচ্ছে না?

মাস্টার শাকিল : সুভাষ দত্ত, খান আতা (চাচা), সিবি জামান, শেখ নজরুল ইসলামদের মতো পরিশ্রমী আর শিশুবান্ধব পরিচালক কোথায়। আমি দেখেছি এরা আমাকে কত পরিশ্রম করে চরিত্রটির গভীরে নিয়ে গিয়েছিলেন, ফলে এক টেকেই ওকে হতো আমার শট। আসলে শিশুদের বুঝতে হবে, ওদের বুঝলে কেবল আপনি ওদের থেকে সেরাটা বের করতে হবে।

নিউজনেক্সটবিডি : এখন তো ঠিক শিশুদের নিয়ে তেমন কিছু হচ্ছে না?

মাস্টার শাকিল : হচ্ছে না বলতে মোরশেদুল ইসলাম কিছু করছেন। তবে এটা তো একার পথ নয়। উনি চেষ্টা করছেন।

নিউজনেক্সটবিডি: আপনার অভিনীত চলচ্চিত্র কয়টি ?

মাস্টার শাকিল : ১৪টি। এরমধ্যে ১১টি ছবি শিশু বয়সের। পুরস্কার, আঘাত কিশোর বয়সের। যুবক বয়সের খান আতা পরিচালিত ‘এখনো অনেক রাত’  (১৯৯৭)।

নিউজনেক্সটবিডি : আপনি তো নাটকের সঙ্গেও যুক্ত রয়েছেন। 

মাস্টার শাকিল : হ্যাঁ ওটাই চালিয়ে যাচ্ছি। এ পর্যন্ত বিভিন্ন চ্যানেলে আমার ৯টি সিরিজ নাটক প্রচারিত হয়েছে।

নিউজনেক্সটবিডি : আপনি তো সঙ্গীত চর্চার সঙ্গেও যুক্ত?

মাস্টার শাকিল : হ্যাঁ, গানের জগতে শাকিল, তুমি আমার ভালবাসা কতদিন (মিক্সড) তিনটি এ্যালবাম বেড়িয়েছে। বলতে পারেন চেষ্টা করছি।

নিউজনেক্সটবিডি : এখনকার কার অভিনয় আপনাকে টানে?

মাস্টার শাকিল : দীঘির। মেয়েটা দারুন করছিল। আমার বিশ্বাস ও উচুমাপের অভিনেত্রী হতে এসেছে। এরপর তেমন কাউকে দেখিনা।

নিউজনেক্সটবিডি : আপনাতে ধন্যবাদ সময় দেয়ার জন্য।

মাস্টার শাকিল : আমি কৃতজ্ঞ দর্শক আমাকে এখনো মনে রেখেছে। আপনাদের মাধ্যমে আমি দর্শকদের অনেক অনেক ভালবাসা।

নিউজনেক্সটবিডি/এএম